Friday

শুভ জন্মদিন কাজী নজরুল ইসলাম। বাংলার শ্রেষ্ঠ কবি

SHARE

বিদ্রোহী কবির আজ জন্মদিন
বল বীর, চির উন্নত মম শির
!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!
গবেষকদের মতে বাংলা ভাষার
সর্বকালের শ্রেষ্ঠ কবিতা
'বিদ্রোহী'।
কুড়ি বয়সের এক বাঙ্গালী টগবগে
তরুণের সৃষ্টিদ্রোহী শব্দচিত্রে মূলত
'স্বতঃউৎসার' প্রতিক্রিয়ায় ১৯২১
সালের ডিসেম্বরের শেষার্ধে এক
রাত্রির বিনিদ্র শ্রমে বাংলা
ভাষায় রচিত হয়েছিল যে অভাবিত
কবিতাভাষ্য,তারই নাম 'বিদ্রোহী'।
কবিতাটির কবি 'বিদ্রোহী'র
রক্ততিলকেই এখনও তার প্রমুখ পরিচয়-
ধ্বজা।
যদিও 'বাংলাদেশের জাতীয়
কবি'র (১৯৭২) অভিধায় অভিষিক্ত
কবি।
তিনি আমাদের 'বিদ্রোহী' কবি
ক্বাজী নজরুল ইসলাম।
'বিদ্রোহী' কবিতা প্রকাশের সঙ্গে
সঙ্গে কবি রাতারাতি জনপ্রিয়তম
কবিতে পরিণত হলেন। আর
ব্রিটিশরাজের চরম রোষানলে
পড়লেন, যার চূড়ান্ত পরিণতি কবির
কারাবাস।
বাংলা কবিতার ইতিহাসে
'বিদ্রোহীর' মতো উত্তাল আলোড়ন
সৃষ্টি করা দ্বিতীয় কোন কবিতা
রচিত হয়নি।
বিদ্রোহ তো নজরুলের গদ্যে-পদ্যে ও
ব্যক্তি সত্তায় মিলেমিশে আছে।
'আমি সৈনিক'-এ তার কী দীপ্ত
উচ্চারণ :"হে আমার অপ্রকাশ
মহাবিদ্রোহী, তুমি আমায় বল
দিয়ো।যেদিন তুমি আসবে, সেদিন
যেন তোমারই পতাকাতলে তোমার
দেওয়া তরবারি করে,রক্ত সৈনিক
বেশে দাড়াতে পারি।"
'বিদ্রোহী' কবিতার বয়স ৯৭ বছর।
১৯২১সাল থেকে আজ পর্যন্ত
সন্দেহাতীতভাবে বাংলা
ভাষার সর্বাধিক পঠিত বাংলা
কবিতা হলো 'বিদ্রোহী'।
আসলে দ্রোহে-সংগ্রামে, প্রেমে-
বিরহে,উপসংহারমূলক আশাবাদে
এটি এক অদৃষ্টপূর্ব মানবদলিল।
শ্রেষ্ট কবি যে তার শ্রেষ্ট পঙক্তির
সাহায্যে জনগণের মুখের ভাষা
পরিশ্রুত করেন, বিদ্রোহী তারও এক
প্রমাণ্য ভাষ্য। এত কিছুর পরেও
বাঙ্গালির এই জাতীয় কবির চর্চা
তেমন হয়না। জন্ম-মৃত্যু বার্ষিকীতে
একটু আলোচনা হয় এই যা। দুখু মিয়া
সত্যিই দুখী রয়ে গেলেন।
গত ১০০ বছরে বাঙ্গালীর সবচেয়ে
প্রাণিত পঙক্তি ও উচ্চারিত কাব্য-
প্রণোদনা :'বল বীর, বল উন্নত মম শির'।
কবিতাটির বাণী, তাৎপর্য এবং
শৈলীগত উৎকর্ষের একক ও তুলনামূলক
উৎকর্ষ নির্ণয়ে সক্ষম।
এই কবিতার ভাষ্য বিশ্বভাষার এক
স্ফিংক্স-সদৃশ রহস্যময়তা, যা
মহাকালের সমান বয়সী।
কবিতাটির অনুবাদ পড়ে মার্কিন
সমালোচক হেনরি গ্লাসি ও অন্যরা
কবিতাটিকে বিংশ শতাব্দীর
অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবিতা বলে শনাক্ত
করেছেন।
শুধু 'বিদ্রোহী' কবিতা নয়, কবির
বেশির ভাগ কবিতায় রয়েছে
বিদ্রোহের কন্ঠ। যে কবিতাগুলো
পাঠে পাঠক আন্দোলিত হয়, অবচেতন
মনে চৈতন্যবোধ জাগে, রক্তকণিকা
উষ্ণ হয়, শিরায়-উপশিরায় জাগরণ
প্রবাহিত হয় পাঠকের।
আমারর প্রিয় কবি কাজি নজরুল
ইসলাম।
জন্মদিনে কবির প্রতি রইল অজস্র হৃদয়
নিংড়ানো গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলী।
SHARE

Author: verified_user