Tuesday

Bangladeshi Bangla Boi Rohosshomoy Dairy | Tushar Abdullah

SHARE

Bangladeshi Bangla Boi Rohosshomoy Dairy | Tushar Abdullah




Bangladeshi Bangla Boi Rohosshomoy Dairy | Tushar Abdullah

#গল্প:রহস্যময় ডাইরি!#লেখক:মোহাম্মদ তুষার আব্দুল্লাহ(Charlie Chaplin)!#পর্ব:১(The beginning page)!



অনেকদিন পর গ্রামের বাড়ী আসলাম।প্রায় ১৫ বছর পর।এসে দেখি বাড়ীর অবস্থা আগের মতো নেই।এখন কে বলবে দেখে যে,বাড়ীটা প্রভাবশালী ইমরান সাহেবের বাড়ী!ইমরান সাহেব আমার দাদু ছিলেন।এইতো কিছুদিন আগে মারা গেলেন।তার লাশটাও দেখতে আসতে পারি নি।কেউ জানাইও নি আমাদের।এসে দাদুর কবর জিয়ারত করে বাড়ীতে প্রবেশ করলাম।বাড়ীতে থাকার মতো আছে শুধু আনার চাচা আর চাচী।তাদের সন্তানদেরকে বিদেশে লেখা পড়া করার জন্য পাঠানো হয়েছে।দাদুর সব খরচ দিয়ে!
বাড়ীটা দেখতে প্রায় ভালোই দেখা যায় এখনো।জমিদার বাড়ী তো।তা বাড়ীতে প্রবেশ করা মাত্রই চাচা আর চাচী এসে বরণ করতে শুরু করলো।চারপাশে অনেক চাকর দেখা যাচ্ছে।বাড়ী ভর্তি চাকর।থাকে মানুষ দু'তিনজন এখানে।তাদের জন্য চাকরের অভাব নেই।দাদু এদেরকে দয়া করে রেখেছে বলেই আছে।বাড়ীতে ভিতরে প্রবেশ করা মাত্রই একটা মেয়ে আমাকে বললো "ছোট সাহেব ব্যাগটা দিন আমারে!" এই বলে ব্যাগটা খুলে নিলো।(মেয়েটা দেখতে অনেক সুন্দর বলে বোঝানোর মত না,সেও নাকু এই বাড়ীতে কাজ করে)!
ব্যাগে অনেক জিনিস পত্র ছিলো।একটা ল্যাপটপ,একটা ক্যামেরা ইত্যাদি।অনেক ভারী ছিলো ব্যাগটা।আমিই ভালো করে নিতে পারছিলাম না কিন্তু মেয়েটা নিও গেলো।বলতে হবে মেয়েটার অনেক শক্তি আছে।তারপর হাতমুখ ধুয়ে খেয়ে নিলাম।বিশ্রাম করার জন্য অর্থাৎ থাকার জন্য একটা ঘর ঠিক করে রাখা ছিলো।সেখানে ওই মেয়েটা আমাকে নিয়ে গেলো।সুন্দর করেই সাজিয়ে রাখা হয়েছিলো ঘরটা।সেই মেয়েটা বলে উঠলো "ছোট সাহেব;ঘরটা আমি সাজিয়েছি কেমন হয়েছে!" আমি বললাম "ভালোই তো হয়েছে!" মেয়েটা একটা মুচকি হাসি দিয়ে বললো "ছোট সাহেব,কিছু লাগলে আমারে বলবেন,আমি আইনা দিমুনি!" আমি বললাম "এখন কিছু লাগবে না,লাগলে তোমাকে জানাবো ঠিক আছে!" মেয়েটা "আইচ্ছা!" আমি বললাম "তোমার নামটা কি বলোতো,এখনো জানা হলো না!" মেয়েটা বললো "অপরুপা!" এই বলেই চলেগেলো মেয়েটা!
বাবা মাও না পারে অনেক।আমাকে একা একাই ঠেলে এই বাড়ীতে পাঠিয়ে দিলো।নিজেরা তো এলোও না।কেন যে এলো না কে জানে?এসব কথা ভাবতে ভাতে ঘুমিয়ে পড়েছিলাম।ঘুম থেকে উঠে দেখি অপরুপা পাশে দাড়িয়ে আছে।বিকাল হয়ে গেছে।অপরুপা বললো "ছোট সাহেব,বিকাল হয়ে গেছে,এতক্ষন কেউ পরে পরে ঘুমায় নাকি!" আমি লজ্জায় কিছু বলতে পারলাম না।বিছানা থেকে উঠেই চলে গেলাম বাথরুমে ফ্রেশ হতে।ফ্রেশ হয়ে এসে ক্যামেরাটা নিয়ে মেয়েটাকে বললাম "চলো গ্রামটা ঘুরে আসি!" মেয়েটা আমাকে বললো "চলেন ছোটো সাহেব" বেরিয়ে গ্রামের পুর্ব দিকে গেলাম।সেখানে ঘুরতে ঘুরতে ছবি তুলছিলাম।তখন মেয়েটা বলে উঠলো "ছোট সাহেব আমার কয়টা ছবি তুইবেন!" আমি বললাম "ছবি তুলবে;আসো ওই গাছটাকে ধরে দাঁড়াও আমি ছবি তুলছি!" এভাবে ওর অনেক ছবি তুললাম!
ঘুরতে ঘুরতে একটা মন্দির দেখতে পেলাম।অনেক পুরোনো।মেয়েটাকে জিজ্ঞাসা করাতে বললো "অনেক আগের মন্দির এইডা,গত ১০০ বছরে কেউ খুলনি এইডা,এই মন্দিরের ভিতরে নাকি অাত্মারা থাকে,তাই এটা মন্ত্র পড়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।আজ পর্যন্ত কেউ খুলেনি,খুলার সাহস করে নি কেউ!" আমি বললাম "তুমি জানলে কি করে এত কিছু!" মেয়েটা বললো আমার চাচার মুখ থেকে শুনা!" আমার মাথায় তখন একটা বুদ্ধি এলো আজ রাতে এখানে আসতে হবে।খুলে দেখতে হবে কি আছে ভেতরে।আসলে আত্মা বলতে তো কিছু নেই এই দুনিয়ায়।কেনই বা বন্ধ করে রাখা হয়েছে এইটা।এটার রহস্য কি জানতেই হবে যেভাবেই হোক!
রাত হয়ে গেলো।খাওয়া দাওয়া শেষ।বাড়ী থেকে বাহিরে যাবে এমন সময় উপর থেকে আওয়াজ আসছে হাটার।আমি উপরে যাবো দেখি ছাদের দরজায় তালা মারা।কিন্তু আওয়াজ আসছে হাটার।কিভাবে কেউ ছাদে যেতে পারে তালা না খুলেই।আমি নিচে গিয়ে চাচীকে বললাম "চাচী ছাদের চাবিটা কোথায়,একটু ছাদে যেতাম!" চাচী বললো "ছাদ তো খোলা হয় না প্রায় ২ বছর।তোর দাদু বন্ধ করেছিলো অনেকদিন আগে,তবে যদি যেতে চাস তাহলে যা,চাবী ঘর থেকে এনে দিচ্ছি!" কিছুক্ষণ পর চাবী হাতে দিলো।আমি ছাদ খুললাম।খুলে দেখি ছাদে অনেক ময়লা জমে আছে।কিন্তু ছাদ থেকে চাদটাকে ভালোই দেখা যাচ্ছিলো।কিন্তু ছাদে তো কেউ নেই।তাহলে কিসের শব্দ হলো কিছুক্ষণ আগে!
আস্তে আস্তে পুরো ছাদ টা ঘুরে দেখলাম।ছাদটা অনেক বড়।একটা চেয়ার ও রাখা আছে।দাদু বসতো হয়তো ওই চেয়ারে।ছাদের এক কোণে ছিলো একটি চিলে কোঠা।তা দেখতে কেমন জানি লাগছিলো।খুব ভয়ংকর লাগছিলো।চাবিদিয়ে আর খোলা লাগলো না।খোলাই ছিলো ওটা।আমি ভিতরে গিয়ে দেখি ময়লা দ্বারা ভর্তি।ভেতরটা একটু নাড়াচড়া করতে করতে হঠাৎ মাথায় একটা ডাইরি এসে পড়লো।আমি হাতে নিয়ে দেখলাম খুব ময়লা জমে আছে ডাইরির উপরে।ফু দিয়ে ময়লা পরিষ্কার করতে না করতেই পেছন থেকে কে জেনো ছুটে গেলো মনে হলো।পিছনে তাকাতেই দেখি-------!
--------------------------------To be continue!
SHARE

Author: verified_user