Friday

Bangla Story Book Fera | Bengali Books Online

SHARE

Bangla Story Book Fera |  Bengali Books Online

Bangla Story Book Fera |  Bengali Books Online

বইঃ ফেরা।লেখিকাঃ সিহিন্তা শরীফা, নাইলা আমাতুল্লাহ্।সম্পাদনাঃ শরীফ আবু হায়াত তপু।শরঈ সম্পাদনাঃ সানাউল্লাহ নজীর আহমাদ।মূল্যঃ ১২০ টাকা। প্রকাশনাঃ সমকালীন প্রকাশন।



Bangla Story Book Fera |  Bengali Books Online ভুমিকাঃ 


"ফেরা" দু'জন খ্রিস্টান মেয়ের ইসলামে দীক্ষিত হবার আত্মজিবনীমুলক কাহিনী। বইটা দু'ভাগে বিভক্ত। প্রথমাংশে বড়বোনের কাহিনী আর শেষাংশে ছোটবোনের কাহিনী। প্রতিটি মুসলিম পরিবারের যুবক-যুবতীদের জন্যও ব্যাপক গুরুত্বপূর্ণ।


 Bengali Books Online

কাহিনী সংক্ষেপঃ 'আল্লাহু আকবার! আল্লাহু আকবার! আশহাদু আল-লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ......'

'সাউন্ড বন্ধ করো! সাউন্ড বন্ধ করো! তোমারা কেউ সাউন্ড কমিয়ে দিচ্ছ না কেন???'
বয়স তখন পাঁচ কি ছয়। ঈদের দিন বেড়াতে এসেছি দাদীর বাড়ি। দেশের একমাত্র টিভি চ্যানেল বিটিভিতে তখন আজান শোনা যেত। সব সময় দেখে এসেছি আমাদের বাসায় আযানের সময়টুকু সাউন্ড মিউট করে রাখা হয়। তাই দাদী বাড়ীতে সবাই চুপচাপ আযান শুনছে দেখেই এভাবে চিৎকার করে উঠলাম আমি। এতগুলো মানুষের সামনে আমার অপ্রস্তুত বাবা-মা সেদিন কেমন করে পরিস্থিতি সামাল দিয়েছিলেন মনে নাই-তবে সেদিনের পর থেকে এটা বুঝে গিয়েছিলাম ওরা আমরা এক নই। ওরা মুসলিম, আমরা খ্রিষ্টান।

বাসায় সেদিন কেউ ছিল না। দরজা-জানালা বন্ধ করে শুরু করলাম সালাত পড়া। জীবনের প্রথম নামায। প্রথম সাজদাহর মুহূর্তটি সারাজীবন মনে থাকবে আমার। স্রষ্টার উদ্দেশ্যে মাটিতে মাথা ঠেকানোর সাথে সাথে ঝর ঝর করে কেঁদে ফেলেছিলাম। সেই আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞতায়, যিনি আমাকে নিজ অনুগ্রহে একজন মুসলিমা হিসেবে সম্মান দান করেছেন।
সে সময় যতবার সালাতে তাশাহুদ পড়তাম, ততবার রোমাঞ্চকর অনুভূতি হতো-
'আশহাদু আল লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু, ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান আব্দুহু ওয়া রসুলুহ'
ছেলেবেলায় আযানের সময় শোনা সেই কথাগুলো-যা টিভিতে শুনে সাউন্ড বন্ধ করতে বলেছিলাম, যে কথাগুলো খেলতে খেলতে সুর করে গাইতাম।
শরীরের প্রতিটি লোম খাড়া হয়ে যেত!
সেই ছেলেবেলা থেকে মসজিদের আযান শুনে আসছি, অথচ এবার আযান শুনি আর অন্যরকম অনুভূতি হয়। অর্থা জানি বলেই হয়তো মনে হত মুয়াজ্জিন আমাকে উদ্দেশ্য করে বলছেন কথাগুলো।


#সূর্যাস্তের আর বেশী বাকি নেই। কিছুক্ষণ পর আযান দিবে। অযু করে ভাতের থালা সামনে রান্নাঘরে একা বসে আছি আমি। আস্তে আস্তে চারিদিক অন্ধকার হয়ে আসছে। ইচ্ছা করেই আলো জ্বাললাম না।
আল্লাহু আকবর, আল্লাহু আকবর!
আল্লাহর নাম নিয়ে পানি মুখে দিলাম। কান্নায় গলা বুজে আসলো।
ঝর ঝর করে কেঁদে ফেললাম। কষ্টট আর
খুশি মিশানো কান্না। কত সৌভাগ্যবান আমি।

 Bengali Books Online
#ইসলাম গ্রহনের পর সবচেয়ে কঠিন পরীক্ষায় আমাদের পড়তে হয়েছে তা হলো মাকে কষ্ট দেওয়া। আমরা জানতাম মা অনেক কষ্ট পাবেন ভেঙে পড়বেন। কিন্তু মাকে তো আল্লাহ তায়ালাই সৃষ্টি করেছেন, তাকে খুশি করতে গিয়ে তো আমরা সৃষ্টিকর্তা থেকে তো দূরে যেতে পারিনা। ইসলামে মা-বাবার গুরুত্ব অনেক। তাদের সকল কথা মান্য করতে বলেছেন আল্লাহ। তবে শুধু আল্লাহর বিরুদ্ধে যায় বা আল্লাহর আদেশ অমান্য করা হবে এমন কথা মানা যাবে না। তাই মা কষ্ট পাবেন জেনেও কিছু করার ছিল না।


Bangla Story Book Fera 
#আমি এখন গর্ব করে বলতে পারি আমি মুসলিমা। ইসলামের পথে আসাই আমার জীবনের সবচেয়ে বড় পাওয়া। আল্লাহ্ তার বান্দাদের কখনো নিরাশ করেন না। আল্লাহর পথে চলতে গেলে বাধা, কষ্ট আসবেই। কিন্তু আল্লাহর উপর ভরসা করে সবর করলে এর ফল অনেক বেশি মধুর হয়। আল্লাহু আকবার!
পাঠ প্রতিক্রিয়াঃ বলছিলাম সিহিন্তা শরীফা ও নাইলা আমাতুল্লাহ্ নাম্নী দু'বোনের ইসলামের সুশীতল ছায়াতলে ফিরে আসার মর্মস্পর্শী আত্মজীবনীগ্রন্থের অন্তরভেদ করা টুকরো কিছু লাইন। বইটা পড়ে কয়েকবারই চোখ ভিজে গেছে। শরীরের লোমগুলো শিহরিত হয়ে উঠছিল।
একটা ধর্মপরায়ণা খ্রিষ্টান মেয়ে যে কিনা আযানের শব্দই শুনতে পারতো না। যার প্রতিটি বিশ্বাস ও ভক্তিতে মিশেছিল খ্রিষ্টানীয় মতবাদ। ইসলাম ছিল যার চোখে নিকৃষ্ট ও অবমাননার ধর্ম।
কিন্তু তার জ্ঞানের পরিধি ও জানার আকুতি আর কৌতুহলী মনোভাব তাকে এভাবে অন্ধ থাকতে দেয়নি। চারিপাশে সমস্ত পরিস্থিতি সামাল দিয়ে তার চিন্তাধারা একসময় ইসলামকে নিয়ে ভাবতে শিখায়। গভীর চিন্তায় মনোনিবেশ হয়ে সে খুঁজে পায় ইসলামের শ্রেষ্ঠতা।
একবোনের ইসলাম গ্রহনের পর অন্যবোন ও স্বেচ্ছায় সানন্দে ইসলামের মহত্ত্বকে উপলব্ধি করতে শুরু করে। অতঃপর ইসলাম গ্রহন করে। কতটা প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে তারা ইসলামকে সুষ্টভাবে আপন করে নিয়েছেন তা বইটি না পড়ে বোঝা অসম্ভব।
পর্যালোচনাঃ বইটিতে বানানগত সামান্য কিছু ভুল আছে। লেখিকা খুব গুছিয়ে নিজের বর্ননা দিয়েছেন।আর বইটি পড়ে আমার সবচেয়ে বেশি যে বিষয়টা ইফেক্ট করেছে সিহিন্তার শেষ কথায় সেটার সুন্দর প্রকাশ ঘটেছে। আর সে আফসোসের বিষয় বারবার অন্তরে পীড়া দিয়েছে।
চোখের কোণে ভেসে উঠেছে আমাদের বর্তমান সমাজের যুবক যুবতীদের আধুনিকতার প্রতিচ্ছবি। তারা ইসলামের মৌলিক শিক্ষা থেকে অনেক দূরে পড়ে আছে। তারা মনে করে, মুভি দেখা পাপ নয়। পাপ হলেও মেজর কোন পাপ নয়। সগীরা গুনাহ, অর্থাৎ ছোট পাপ। ছোট পাপে সমস্যা নেই তাদের মতে। তারা মনে করে, শুক্রবারে দু’রাকাত নামাজ মসজিদে পড়লেই তাদের মুসলমানিত্ব রক্ষা হয়ে যায়।
মেয়েরা ব্রু ফ্লাক করে, পার্লারে গিয়ে সাজে। টু বি অনেস্ট, নামাজ-কালাম করে এমন অনেককে দেখেছি সমানতালে প্রেমও করে। একজন গায়রে-মাহরামের (যার সাথে বিনা প্রয়োজনে দেখা করা, কথা বলা পর্যন্ত শরীয়তে হুকুম নেই) তার সাথে রাত-দিন আলাপচারিতা। বিভিন্ন দিবসে ঘুরতে যায়। রেস্টুরেন্টে বসে খায়। রিক্সায় করে ঘুরে। দিনশেষে দাবি করে, দে আর মুসলিমস। তাদের মুসলমানিত্বের দাবি ফেইসবুকের এ্যাবাউটে রিলিজিয়ন হিসেবে ‘ইসলাম’ সেট করা পর্যন্ত।
নামধারী সেসব মুসলিমদের চলাফেরা দেখলে তো ধর্মের পার্থক্য করার কোন উপায় নাই। কিভাবে আপনার পাশের বিধর্মী বন্ধুটি আপনার ধর্মের শ্রেষ্ঠতা বুঝবে??
এখানে সিহিন্তার শেষ কথাটা তুলে ধরি....
"মুসলিম নামধারী মুসলমানদের কিছু বলতে ইচ্ছা করে। আল্লাহ মানুষকে যা দিয়েছেন তা একদিক থেকে দেখলে যেমন আশীর্বাদ অন্যদিক থেকে তা পরীক্ষা। আমি অনেক খুঁজে ফিরে ইসলাম পেয়েছি। যারা মুসলিম ঘরে জন্মগ্রহণ করেছেন সহজেই ইসলাম পেয়েছেন তারপরেও ইসলাম সম্পর্কে জানেন না, ইসলাম মানেন না—তারা আল্লাহর সামনে দাড়িয়ে কি জবাব দেবেন??"
উপসংহারঃ সবশেষে বলবো আসুন আমরাও ফিরে আসি আল্লাহর পথে। নামধারী মুসলিম নাম থেকে ফিরে আসি। পূর্নতার সহিত ইসলামের ছায়াতলে ডুবে যাই। আমাদের আর বিধর্মীদের চলাফেরা যেন আকাশ-পাতাল ব্যবধান হয়। যা অন্যকে ইসলামে ফিরে আসতে আকৃষ্ট করে।
আর "ফেরা" পড়লে অনেকটাই বুঝে আসবে কিভাবে শত প্রতিকূলতার মাঝেও ফিরে আসা যায় আল্লাহর পথে। আল্লাহই আমাদের সাহায্য করবেন। ইন শা আল্লাহ।
আল্লাহ যেন তাদেরকে এবং আমাদেরকে সিরাতুল মুস্তাক্বীমের পথে অটল, অবিচল রাখেন। আরো হাজারো পথহারা হৃদয়ের, গন্তব্য বিচ্যুত আত্মার হিদায়াতের উসিলা বানিয়ে দেন। আমীন।
- Tuhfa Jannat


Bangla Story Book Lowho Manob |  Bengali Books Online

Bangla Story Book Lowho Manob |  Bengali Books Online

বই : লৌহ মানব লেখক : নাসীম হিজাযীঅনুবাদক : ফজলুদ্দীন শিবলী প্রকাশনা :আল এছহাক প্রকাশনামূল্য :১৬০ পৃষ্ঠা : ২০৮



হাম্মাদ অনেক বড় একজন মুজাহিদ যাকে লৌহমানব খেতাব দেওয়া হয়েছে .. এমন কোন যুদ্ধ নেই যেখানে সে জয়ী হয় নি সবস্থানেই জয় তার পদচুম্বন করে .. পরাজয় হাম্মাদের অভিধানে নেই .. অসাধারণ বীরত্বের সাথে যুদ্ধ করেছে প্রতিটি যুদ্ধ .. কিন্তু মুজাহিদ বলে তারও তো মন আছে ভালোবাসা আছে .. কারণ সেতো একজন মানুষ তাই ময়দানে যাওয়ার পথে দেখলো এক হিন্দু ছেলে আঘাত প্রাপ্ত হয়ে রাস্তায় পড়ে আছে তাই হাম্মাদ তাড়াতাড়ি ঘোড়া থেকে নেমে পানি পান করালো এরপর তার ক্ষতস্থানে পট্টি বেধে দিলো অতঃপর জানতে পারলো তার সুন্দরী বোন রত্নাকে নিয়ে ছয়জন সন্ত্রাস তাকে রক্তাক্ত করে পালিয়েছে ... হাম্মাদ শুনা মাত্রই ওদের পদচিহ্ন লক্ষকরে ঘোড়া হাঁকালো এবং ওদের ছয়জনকে শায়েস্তা করে হিন্দু ছেলের বোন রত্নাকে উদ্ধার করলো এরপর কিছু দিন হাম্মাদ ওদেরকে নিয়ে এক বাড়িতে আশ্রয় নিলো কিন্তু রত্না হাম্মাদকে এক চোখে দেখতে পারতো না .. অনেক বেশী ঘৃণা করতো এমনকি কখন হাম্মাদের কবল থেকে ছাড়া পাবে সারাক্ষণ সেই চিন্তা করতো কিন্তু রত্না জানতো না ভাগ্যে কি লেখা ছিলো .. একদিন যে এমন সময় আসবে যখন হাম্মাদের একমিনিটের বিচ্ছেদ ও তার সহ্য হবে না .............
পুরো কাহিনীটি না পড়লে সত্যি মিস করবেন অসাধারণ এক রোমাণ্টিক কাহিনী কিছু কষ্ট কিছু আনন্দ সবই পাবেন এই কাহিনীতে... পড়তে পারেন অনেক ভালো লাগবে
SHARE

Author: verified_user