Tuesday

Bangla Boi | দ্য গার্ল উইথ দ্য ড্রাগন ট্যাটু রিভিউ | অনুবাদকঃ মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন

SHARE

Bangla Boi | দ্য গার্ল উইথ দ্য ড্রাগন ট্যাটু রিভিউ |  অনুবাদকঃ মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন

Bangla Boi | দ্য গার্ল উইথ দ্য ড্রাগন ট্যাটু রিভিউ |  অনুবাদকঃ মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন

নামঃ দ্য_গার্ল_উইথ_দ্য_ড্রাগন_ট্যাটলেখকঃ স্টিগ লারসনঅনুবাদকঃ মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিনপ্রকাশনীঃ বাতিঘর প্রকাশনীমূল্যঃ ৩৫০ টাকা


মিলিনিয়াম পত্রিকার সাংবাদিক মিকাইল ব্লমকোভিস্টকে একজন ব্যবসায়ীর নামে মিথ্যা রিপোর্ট ছাপানোর জন্য দোষী সাব্যস্ত করে সাজা দেয়া হয় । প্রকৃত পক্ষে মিকাইল ব্লমকোভিস্ট ছিল ষড়যন্ত্রের শিকার । মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত মিকাইল ব্লমকোভিস্ট যখন ভেবে পাচ্ছিলো না কি করবে, তখনই তার কাছে একটা অন্য রকম প্রস্তাব আসে । তাকে প্রস্তাব দেয় ষাটের দশকের একজন বড় বিজনেসম্যান । কিন্তু প্রস্তাবটা এমনই অদ্ভুত ছিল যে, মিকাইল সেটাতে সাড়া দিতে প্রথমে ইতস্তত করে কিন্তু বিপুল পরিমাণ অর্থের সাথে আরও এমন কিছু অফার করে যে মিকাইল সেটা “না” করতে পারে না । সে প্রস্তাবে রাজী হয়ে চলে আসে সেই বিজনেসম্যানের এলাকায় থাকার জন্য । অনুসন্ধান শুরু হয়...।

Words 
  • bangla library
  • bangla book
  • bangla ebook
  • bengali story books
  • bengali books pdf
  • bangla book pdf
  • bangla story book
  • bangla books
  • bengali ebook
  • bangla e book
  • bengali books online
  • bangla novel
  • bangla boi pdf
  • bangla islamic book
  • bangla golpo pdf
  • bangla book download
  • bangla ebook pdf
  • bangla book online
  • bengali ebook collection
  • bengali detective story books pdf free download
  • bangla golpo book
  • bengali story books pdf
  • all bangla books pdf
  • buy bengali books online
  • bengali pdf


.
অনুসন্ধানটা ৪০ বছর আগে, ১৯৬৬ সালে । বিজনেসম্যান হেনরিকের ভাইয়ের মেয়ে হ্যারিয়েট হঠাৎ করেই একদিন গায়েব হয়ে যায় । বলা চলে একেবারে চোখে সামনে হাওয়ায় মিলিয়ে যায় । হ্যারিয়েট যদি মারা যেত কিংবা কেউ তাকে খুন করতো তাহলে তার মৃত্যুর কোন প্রকার আলামত থাকতো কিংবা কিছু না কিছু সূত্র রয়ে যেতো কিন্তু এই কেসের ব্যাপারে তেমন কিছুই পাওয়া যায় না । বিজনেসম্যান হেনরিক তার পুরো জীবনটা কেবল এই অনুসন্ধান করে কাটিয়েছেন যে, হ্যারিয়েটের আসলে কি হয়েছিল ? এক সময়ে ধারনা হয় যে, তার পরিবারের কেউ তাকে হয়তো মেরে ফেলেছে । যদি মেরে ফেলে- তাহলে, কে মেরেছে ? অনেক অনুসন্ধান চালানো হয়েছিলো কিন্তু কোন ফল আসেনি । তাই হেনরিক চাচ্ছে ব্লমকোভিস্ট যেন সেই সত্যটা বের করে । তার মৃত্যুর আগে সে সত্যটা জেনে মরতে চায় । অসম্ভব একটা সত্য বের করার পেছনে ব্লমকোভিস্ট ছুটতে থাকে । প্রথমে সব কিছু অন্ধকার মনে হলেও এক পর্যায়ে আস্তে আস্তে সব কিছু সামনে আসতে থাকে ।
.
এই গল্পের আরেক অদ্ভুত চরিত্র সমাজচ্যুত তরুণী লিজবেথ স্যালান্ডার । বয়স চব্বিশের কাছাকাছি, মাথার চুল ছোট ছোট করে ছাটা, তাতে আবার ডাই করা ! ভ্রু আর মুখের কয়েক জায়গায় রিং বসানো । ঘাড়ে, হাতে, পায়ে বেশ কয়েকটা কালারফুল ট্যাটুও আছে । ঠোঁটে কাল লিপস্টিক- ভীষণ ফ্যাকাশে দেখতে । একদমই হ্যাংলা পাতলা, টাইট লেদার জিন্স, বিচিত্র বাক্য সাজানো টি শার্ট আর তার উপর ছেঁড়াফাড়া, তালি মারা টাইপ জ্যাকেট পরা, পায়ে ভারি বুট । ভসভস করে সিগারেট টানে, অস্বাভাবিক অন্তর্মুখী । কিন্তু তার গুপ্ত পরিচয়- সে একজন অসাধারন প্রতিভাবান রিসার্চার । ব্লমকভিস্ট এবং স্যালান্ডার জড়িয়ে পড়ল ৪০ বছরের পুরানো রহস্য উদঘাটনে । ঘটনা চক্রে এই দুইজন এক সাথে কাজ করা শুরু করে হ্যারিয়েট রহস্য উদ্ধার করার জন্য । একটা সময় এমন কিছু সত্য সামনে চলে আসে যা আগে থেকে কেউ কল্পনাও করতে পারেনি ।
.
প্রথম প্রথম একটু এক ঘেয়েমী লাগতে পারে কিন্তু যতই আপনি গল্পের ভেতরে পৌঁছাতে শুরু করবেন ততই খেলা জমে উঠবে । চরম বুদ্ধিদীপ্ত আর মারাত্মক মাত্রার গতিশীল একটি কাহিনী । কাহিনী এতোটাই ভিন্ন মাত্রার যে বইটি শেষ হওয়ার পর খুব আশ্চর্য হতে হয় । যখনই পাঠক কাহিনীর ভিতরে পুরোপুরি প্রবেশ করে যাবেন তখন হাত থেকে আর বইটা নামিয়ে রাখতে ইচ্ছা হবে না । দারুণ সাসপেন্সে ভরপুর 'দ্যা গার্ল উইথ দ্যা ড্রাগন ট্যাটু' যার পরতে পরতে রয়েছে টুইস্টের ছড়াছড়ি, প্রচুর ভায়োলেন্স এবং এডাল্ট (সেক্স) কন্টেইন । ট্রিলজি সিরিজের এটি প্রথম বই এবং বিশাল এর বিস্তৃতি । তাই একটানা এটা পড়ে শেষ করা যাবে না । সময় নিয়ে পড়লে এর রসাদ্বন আপনাকে পরিতৃপ্ত করবে । উপন্যাসটি পাঠকালীন আপনি যেমন হারিয়ে যাবেন অন্য এক দুনিয়ায়, অন্যান্য সময়ও সেখান থেকে বাস্তবে ফিরতে কষ্টই হবে । রাতের ঘুমও হারাম হয়ে যাবে নিশ্চিত !
.
নাজিম ভাইয়ের প্রথমকার দিকের করা অনুবাদগুলোর থেকে এটি বেশ সাবলীল ছিল, যদিও বর্ণনামতে গল্পে প্রবেশ করতে খানিকটা বেগ পেতে হয়ে। কিন্তু গল্পে প্রবেশ করার পর সেই আরষ্টতা কেটে গিয়েছেল । তো আপনারা এই রেসের জন্য প্রস্তুত তো ?
.
SHARE

Author: verified_user