Sunday

Bengali Story Books Dewaler Opare Bhalobasha - Kaisar islam Raj

SHARE

Bengali Story Books  Dewaler Opare Bhalobasha - Kaisar islam Raj


দেয়ালের ওপারে ভালোবাসা


         "দেয়ালের ওপারে ভালোবাসা"


.সকাল সকাল পাশের ফ্লাটের দেয়ালের ঠক ঠক শব্দে অপ্সরার অারামের ঘুমটা হারাম হয়ে গেলো। দুইটা বলিশ কানের মধ্যে চেপেও কাজ হলোনা। বিছানা থেকে উঠে এক ট্রাক রাগ নিয়ে দরজা খুলে ছুটে গেলো পাশের ফ্লাটে। ড্রয়িংরুম এর অগোছালো ফার্নিচার পেরিয়ে ভেতরের রুমে প্রবেশ করলো অপ্সরা। চেয়ারের উপর দাঁড়িয়ে একটা ছেলে হাতুড়ি দিয়ে দেয়ালে পেরেক ঢুকাচ্ছে।
-ঐ মিষ্টার সকাল সকাল কি শুরু করলেন?
অামার দিকে তাকানোর পর ফা হয়ে ছেলেটার দিকে তাকিয়ে রইলাম। চিকন ফ্রেমের চশমাপরা ইন করে লুজ টাই এক হাতে হাতুড়ি অন্য হাতে পেরেক এক দেখাতেই ছেলেটার প্রতি লাড্ডু হয়ে গেলাম।
=অামাকে বলছেন?
জড়তা ভেঙ্গে বল্লাম জ্বি অাপনাকে বলছি।
=কি হয়েছে?
-অামার অারামের ঘুমটা হারাম হয়েছে দেয়ালের ঠক ঠক শব্দে।
=তো?
-অাস্তে আস্তে শব্দ করে কাজ করেন।
চেয়ার থেকে ছেলেটা নেমে এসে অামার হাতে হাতুড়ি অার পেরেক ধরিয়ে দিয়ে বল্লো অাপনি করেন।
-অাজিব তো অাপনার কাজ অামি কেনো করবো?
=অামি করলে শব্দ হয় তাই।
হাতুড়ি দিয়ে ছেলেটার মাথা ফাটাই দিতে মন চাচ্ছে। অামিও ছেলেটার হাতে হাতুড়ি অার পেরেক ধরিয়ে দিয়ে বল্লাম পারবো না। এক ট্রাক রাগ নিয়ে পাশের ফ্লাট থেকে বেড়িয়ে অাসলাম। রুম এ এসে ফ্রেশ হয়ে নাশতা করতে বসলাম এখনো পাশের রুম থেকে ঠক ঠক শব্দ অাসছে। মনে মনে ছেলেটাকে তিব্বত ৫৭০ সাবান দিয়ে নন স্টপ ধুচ্ছিলাম। বুয়া এই বুয়া?
~জ্বি অাপামনি?
-দুপুরে অাম্মু অাসলে বলবা অামি অাজকে ভার্সিটি থেকে দেরি করে ফিরবো ওকে।
~অাচ্ছা অাপামনি।
নাশতা শেষ করে বাসা থেকে বের হয়েও শুনি পাশের ফ্লাটের ঠক ঠক শব্দ। অসহ্য অাজকের দিনটাই খারাপ যাবে।
বাসার সামনে থেকে রিক্সায় করে ভার্সিটির দিকে যেতে শুরু করলাম, ব্যাগ থেকে ফোন বের করে ইমাকে ফোন দিয়ে বল্লোম কইরে তুই?
>অার বলিস না ১০ মিনিট যাবত বাসার সামনে দাঁড়াই অাছি একটা খালি রিক্সাও পাচ্ছি না।
-তুই থাক অামি অাসছি।
একটু পর ইমার বাসার সামনে গিয়ে বল্লাম অায়? রিক্সায় উঠে কিছুদূর যাবার পর ইমা বল্লো কিরে মুখটা এমন পেঁচার মতো করে রেখেছিস কেন?
-পাশের ফ্লাটের একটা ছেলে সকাল সকাল মেজাজ খারাপ করে দিয়েছে।
>তুই না বলেছিস তোদের পাশের ফ্লাটে কেউ থাকে না?
-থাকতো না তো অাজ উঠেছে, অার উঠেই দেয়ালে ঠক ঠক শব্দ।
>হা হা হা।
-এখানে ভেটকানির কি হলো?
>কিছুনা তারপর কি হলো বল?
-তারপর অার কি হবে অামি গেলাম বল্লাম শব্দকরে কাজ না করতে।
>ছেলেটা কি বল্লো?
-অামার হাতে হাতুড়ি অার পেরেক ধরিয়ে দিয়ে অামাকে করতে বলেছে।
>বাপরে ডেঞ্জারাস ছেলে তো, তুই কিছু বলিস নি?
-তুই এতকিছু জেনে কি করবি?
>অাচ্ছা বলতে হবে না এখন বল ছেলেটা দেখতে কেমন?
-টমেটোর মতো।
>ফাজলামো করিস না তো বলনা ছেলেটা দেখতে কেমন?
-ছেলেটার মতো।
>অামার খুব দেখতে ইচ্ছে করছে ছেলেটাকে,
-যা অামার বাসায় গিয়ে দেখে অায়।
>যাবো তো অবশ্যই তবে এখন না কিছুদিন পরে।
ইমার এই স্বভাবটা অামার কাছে অসহ্য লাগে ছেলেদের কথা শুনলেই না দেখে লাড্ডু হয়ে যায়। প্রেম করেছে অনেকগুলো কিন্তু একটাও লাষ্টিং করেনাই, তবে ইমার মনটা অনেক ভালো। ভার্সিটিতে ওই অামার বেষ্ট ফ্রেন্ড।
ক্লাস শেষ করে ইমাকে নিয়ে ভার্সিটি থেকে বের হয়ে একটা রেষ্টুরেন্টে খেতে বসেছি, হঠাৎ পাশের টেবিলে চোঁখ পরতে দেখি সায়েম বসে অাছে। সায়েম অার অামার ব্রেকাপ হয়েছে ছয় মাস হবে। ফোনে একটা মেসেজ অাসলো, মেসেজ বক্স এ গিয়ে দেখি সায়েম দিয়েছে, লিখেছে I'm Sorry.... Please Forgive me as the last time.... Miss u so much...



Bangla Short Story BHUL | Bangla Golpo Online Reading



তাড়াতাড়ি খেয়ে রেষ্টুরেন্ট থেকে বের হয়ে গেলাম। সায়েমের সাথে সম্পর্ক থাকা অবস্থায় প্রতিটা দিন অামাদের ঝগড়া হতো। ওর মেয়ে ফ্রেন্ডদের কে যতোটা কেয়ার করতো তার ১% যদি ও অামাদের সম্পর্কটার করতো তাহলে হয়তো সম্পর্কটা অামি এখনো ধরে রাখতাম।
পাশাপাশি হাটতে হাটতে ইমা বল্লো কিরে কি ভাবছিস?
-কিছুনা।
>সায়েমের সাথে কি সম্পর্কটা কি অাবার শুরু করবি?
-জানিনা রে। ওর প্রসঙ্গ বাদ দে প্লিজ ভালোলাগছেনা।
সন্ধ্যার দিকে বাসায় ফিরে অাসলাম। ড্রইংরুমে সোফার পাশে বসে বুয়া স্টার প্লাসের সিরিয়াল দেখতেছিলো। বুয়া অাব্বু অাসছে?
~না অাপামানি।
-অাম্মু কই?
~খালাম্মা তো রান্না করতেছে।
রুম এ গিয়ে ড্রেস চেঞ্চ করে ফ্রেশ হয়ে এসে দেখি বুয়া এখনো টিভি নিয়ে বসে অাছে।
বুয়া যাও অামার জন্য একটা কফি বানাই অানো।
সোফায় বসে রিমোট টা নিয়ে একটার পর একটা চ্যানেল বদলাতে লাগলাম। রেষ্টুরেন্টএ হঠাৎ সায়েমকে দেখার পর থেকে কিছুই ভালোলাগছে না। কিছুক্ষণ পর বুয়া কফি নিয়ে অাসলো। কফির মগটা নিয়ে দরজা খুলে সিড়ি বেয়ে ছাদে চলে অাসলাম। দোলনাতে বসে কফি খাচ্ছি কেমন যেনো উগ্র একটা গন্ধ অাসছে। ছাদের বাঁপাশটাতে তাকানোর পর দেখি পাশের ফ্লাটের ছেলেটা দাঁড়িয়ে সিগারেট খাচ্ছে, দৃষ্টি সুদূর অাকাশপানে। দোলনা থেকে উঠে ছেলেটার কাছাকাছি এসে বল্লাম এই মিস্টার সিগারেট টা ফেলে দিন। নিজের তো ক্ষতি করছেন পাশাপাশি অন্যের ও।
অামার দিকে ফিরে ছেলেটা সিগারেট ফেলে দিয়ে কিছু না বলেই চুপচাপ ছাদ থেকে নেমে গেলো, অার অামি একা একা ছাদে দাঁড়িয়ে রাতটাকে উপভোগ করতে লাগলাম।
.
পরদিন একটু লেইট করেই ঘুম থেকে উঠলাম। ব্রাশ করতে করতে বারান্দায় গিয়ে পাশের ফ্লাটের বারান্দায় পাখির কিচিরমিচির শব্দ শুনতে অন্যরকম ভালোলাগছিলো। বড়একটা খাঁচায় অনেকগুলো লাভবার্ডস। অবশ্য অামিও পাখি পাগলী। এক সময় অামিও পাখি পুষতাম কিন্তু অামি পাখি বাঁচাতে পারি না। হঠাৎ কিউট একটা মেয়ে বেবি রুম থেকে দৌড়ে বারান্দায় এসে খাঁচার পাশটাতে লুকিয়ে পড়লো, বেবি টা এতোটাই গুলুগুলু ছিলো যে গালগুলো টানতে ইচ্ছে করছিলো।
মামনি অারেটু বাকি অাছে খেয়ে নাও বলে একটা খাবারের প্লেইট এ কিছুটা খাবার নিয়ে বারান্দায় অাসলো সেই ছেলেটা। ছেলেটার সাথে চোঁখাচোঁখি হবার পর মুখ থেকে ব্রাশটা নামিয়ে ডান হাতটা উঠিয়ে হায় দিলাম, ছেলেটা অামাকে কিছু না বলে বেবিটার কাছে গিয়ে বল্লো লক্ষি মামনি অারেকটু অাছে খেয়ে নাও?
=খাবো না।
-একটু মামনি?
=তুমি খাও।
-মামনি তুমি না খেলে তোমার মাম্মি রাগ করবে, তোমার কাছে অাসবে না!
=মাম্মি কবে অাসবে?
-তুমি খেয়ে নাও তোমার মাম্মি খুব তাড়াতাড়ি চলে অাসবে।
ছেলেটা খাবারের প্লেইট থেকে কিছুটা খাবার নিয়ে বেবিটার মুখের সামনে ধরলো। বেবিটা খেতে শুরু করলো। বেবিটাকে খাবার খাওয়ানো শেষ হবার পর ছেলেটা বেবিটাকে কোলে নিয়ে রুমের ভেতরে চলে গেলো।
অামিও বারান্দা থেকে রুম এ এসে ফ্রেশ হয়ে নাশতা করতে ডাইনিং এ অাসলাম। অাম্মু নাশতা দিতে দিতে বল্লো পাশের ফ্লাটে নতুন ভাড়াটিয়া এসেছে জানিস?
-হুম জানি।
পাশের বাসার বেবিটাকে কোলে নিয়ে বুয়া দরজা খুলে ভেতরে ঢুকলো। অাম্মু বাচ্চাটাকে দেখে বুয়াকে বল্লো কার বাচ্চা এইটা? অামি নাশতা রেখে উঠে গিয়ে বুয়ার কোল থেকে বাচ্চাটাকে নিয়ে বুয়া বলার অাগেই বল্লাম পাশের ফ্লাটের। কিউট না অাম্মু বেবিটা।
≠হে। তোমার নাম কি?
মেয়েটা কিছুই বলছে না। একবার অামার দিকে তাকায় একবার অাম্মুর দিকে তাকায় একবার বুয়ার দিকে তাকায়। অাম্মু বেবিটার একটা হাত ধরে অাবারো বল্লো নাম কি তোমার?
কিন্তু এবারও বেবিটা কিছুই বল্লো না।
ঈপ্সা কোথায় তুমি ইপ্সা? পাশের ফ্লাট থেকে ছেলেটা ডাকতে ডাকতে বের হয়ে অামাদের ফ্লাটের দরজার সামনে এসে দাঁড়ালো।
SHARE

Author: verified_user